কাঁঠাল খেয়ে’ যেসব’ খাবার’ খাওয়া’ ঠিক নয়!

কাঁঠাল অনেকেই পছন্দ’ করেন। খেতে সুস্বাদু হওয়ার পাশাপাশি কাঁঠাল স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এটি সবজি এবং ফল’ দুই ভাবেই খাওয়া যায়। কাঁঠাল ভিটামিন এ, সি, থায়ামিন, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ফলিক অ্যাসিড, ম্যাগনেসিয়াম’ সমৃদ্ধ। কাঁঠাল খেলে: রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা’ খুব দ্রুত বৃদ্ধি পায়।

তবে মনে রাখতে হবে কাঁঠাল’ খাওয়ার পর কয়েকটি খাবার এড়িয়ে’ যাওয়া উচিত। কাঁঠাল শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে অনেক রোগকে’ দূরে রাখে। কিন্তু অনেক সময়’ এমন হয় যে স্বাস্থ্যকর খাওয়ার তাগিদে আমরা এমন কিছু খাবারের কম্বিনেশন তৈরি’ করি যা স্বাস্থ্যের উপকার না করে ক্ষতি’ করতে শুরু করে। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক কী কী জিনিস যা কাঁঠালের সঙ্গে খাওয়া’ উচিত নয়।

কাঁঠাল খাওয়ার পর যেসব খাবার খাবেন না—

দুধ: কাঁঠাল খাওয়ার’ পরপরই দুধ খাওয়া উচিত নয়। শুধু তাই’ নয়, দুধ খাওয়ার পরও কাঁঠাল খাওয়া উচিত নয়। এই কারণে আপনার ত্বক সংক্রান্ত সমস্যা’ হতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে’ চুলকানি, সাদা দাগ, ব্রণ ইত্যাদি সমস্যা। এ ছাড়া হজম সংক্রান্ত রোগের ঝুঁকিও থাকতে’ পারে।

মধু: অনেকেই কাঁঠাল’ খাওয়ার পর মধু খেয়ে থাকেন, যা স্বাস্থ্যের’ জন্য ভালো নয়। এটা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর বলে মনে করা হয়। কাঁঠাল খাওয়ার’ পর মধু খেলে তা শরীরে রক্তে’ শর্করার মাত্রা বাড়িয়ে দিতে পারে। বলা হয় পাকা কাঁঠাল খাওয়ার পরও মধু খাওয়া’ উচিত নয়।

পান: কাঁঠাল খাওয়ার’ পর ভুলেও পান খাবেন না। এতে হজমের’ সমস্যা হবে। কাঁঠালের মধ্যে থাকা অক্সালেট পানির সঙ্গে মিশে পেটে নানা ধরনের সমস্যা’ করতে পারে। এ কারণে কাঁঠাল’ খাওয়ার পর অন্তত দু থেকে তিন ঘন্টা পর পান খেতে পারেন।

ঢেঁড়স: কাঁঠাল খাওয়ার পর কখনোই’ ঢেঁড়স খাওয়া ঠিক নয়। এতে’ স্বাস্থ্যের যথেষ্ট ক্ষতি হবে। কাঁঠালের মধ্যে থাকা অক্সালেট ঢেঁড়সের সঙ্গে মিশে ফুসকুড়ি, ত্বক’ জ্বালাপোড়া হতে পারে। এমনকি’ বমি হওয়ার ঝুঁকি থাকে।

পেঁপে: কাঁঠালের সবজি বা পাকা কাঁঠাল’ খাওয়ার পর পেঁপে খাওয়া’ এড়িয়ে যাওয়া উচিত। কারণ পেঁপেতে থাকা ক্যালসিয়াম আর কাঁঠালে থাকা অক্সালেট’ পেটে গিয়ে বিষক্রিয়ার সৃষ্টি’ করতে পারে। এতে শরীরে প্রদাহ সৃষ্টি হতে পারে।

Leave a Comment